ট্যাগ সংরক্ষণাগার:দর্শন

“যে গল্পের শেষ নেই” মানে সভ্যতার ইতিহাস

যদি প্রশ্ন করা হয়, বিশ্বের সবচেয়ে বড় গল্প কোনটি? অনেকেই হাত তুলে হয়তো একবাক্যে আরব্য রজনীর সেই সহস্র এক রজনীর গল্পের কথা বলবে। আর বিদগ্ধ পড়ুয়াদের কেউ কেউ হয়তো রুশ লেখক লিও টলস্টয়ের ওয়ার অ্যান্ড পিসের কথাও বলে বসতে পারে। কিন্তু হিসাব বলছে, কারও উত্তরই সঠিক নয়। আসলে বিশ্বের সবচেয়ে গল্পের জন্মস্থান আরবেও নয়, রাশিয়াতেও নয়। বরং এর জন্ম আমাদের এই বাংলাদেশেই। আরও ভালো করে বললে, আমাদের গ্রাম-বাংলায় পানখেকো গল্পবুড়োদের …

আরও পড়ুন

ধর্মের প্রয়োজনীয়তা কতটুকু?

ধর্ম কি? উত্তরে বলবেন নৈতিকতা, ঈশ্বরীয় নীতি, সামাজিকভাবে বেঁচে থাকার জন্য, সভ্য মানুষ হিসেবে বেঁচে থাকার জন্য ধর্ম। এর বাইরে আশা করি আপনার আর উত্তর নেই। অবশ্য অপ্রকাশিত উত্তর এটাও যে পরকালের আশায় ইহকালে পূণ্য সঞ্চয়। আমি দৃঢভাবে বিশ্বাস করি বিশ্বাসী মানুষের কাছে ভয় খুবই প্রকটভাবে রয়েছে। বেশিরভাগ মানুষ শেষ বয়সে ধর্মটাকে বেশি ব্যবহার করে, মৃত্যু ভয়ে। যাহোক বিশ্বাস অবিশ্বাস সম্পূর্ণ আপনার নিজের ইচ্ছা এবং আগ্রহ। পূথিবীতে বর্তমানে ৪,৩০০ ( …

আরও পড়ুন

কার্ল মার্ক্স : জীবন ও দর্শন

কার্ল হাইনরিশ মার্ক্স (জার্মান: Karl Heinrich Marx জার্মান উচ্চারণ: [kaːɐ̯l ˈhaɪnʀɪç ˈmaːɐ̯ks] ) (৫ই মে, ১৮১৮ – ১৪ই মার্চ, ১৮৮৩) একজন প্রভাবশালী জার্মান সমাজ বিজ্ঞানী ও মার্ক্সবাদের প্রবক্তা। জীবিত অবস্থায় সেভাবে পরিচিত না হলেও মৃত্যুর পর সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবীদের কাছে তিনি জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। বিংশ শতাব্দীতে সমগ্র মানব সভ্যতা মার্ক্সের তত্ত্ব দ্বারা প্রবলভাবে আলোড়িত হয়। সোভিয়েত ইউনিয়নে সমাজতন্ত্রের পতনের পর এ তত্ত্বের জনপ্রিয়তা কমে গেলেও তাত্ত্বিক দৃষ্টিকোণ থেকে মার্ক্সবাদ এখনও অত্যন্ত …

আরও পড়ুন

দর্শনের শ্রেণি চরিত্র

আমাদের কালে সমাজের মূল দুটো শ্রেণি হচ্ছে শ্রমিক শ্রেণি ও বুর্জোয়া বা ধনিক শ্রেণি । পৃথিবীতে এযাবৎকালে যে সব দার্শনিক তত্ত্বের উদ্ভব হয়েছে এবং এসময়ে বর্তমান আছে তা হয় বস্তুবাদী নয় ভাববাদী । বস্তুবাদ আর ভাববাদের মাঝামাঝি কোনো দর্শন নেই । বস্তুবাদী দর্শন শ্রমিক ও মেহনতি মানুষের পক্ষ কাজ করে আর ভাববাদ ধনিক শ্রেণি ও শোষকগোষ্ঠীর পক্ষে কাজ করে । এখানেই দর্শনের পক্ষপাতিত্ব, শ্রেণি চরিত্র ফোটে ওঠে । (ক) দর্শন …

আরও পড়ুন

দর্শনের বুনিয়াদী প্রশ্ন

আমাদের পারিপার্শ্বিক জগতের সবকিছুই হয় বস্তুগত নয় ভাবগত । বিষয়গতভাবে যেগুলোর অস্তিত্ব আছে সেগুলো বস্তুগত । এগুলো মানব-চৈতন্যের বাইরে অর্থাৎ এসবের অস্তিত্ব মানুষের চেতনার উপর নির্ভর করে না । যেমন – পৃথিবী, মহাবিশ্ব ও সামাজিক ব্যাপারগুলো । অন্যদিকে যেগুলো মানুষের চেতনায় বিরাজ করে বা যুক্ত থাকে মানুষের মানসিক ক্রিয়াকলাপের সাথে সেগুলো হলো ভাবগত বা আত্মিক । যেমন – চিন্তা, অনুভূতি, ভাবাবেগ ইত্যাদি । ভাবগত ও বস্তুগত ছাড়া পৃথিবীতে কোনো কিছু …

আরও পড়ুন
error: এই ব্লগের লেখা কপি করা যাবে না