তোমাদের প্রতি শতকোটি সালাম

এই তরুণরাই ইতিহাস-ঐতিহ্যকে ধারণ করবে- এরাই ইতিহাস গড়বে। তারা বায়ান্না দেখেনি, একাত্তর দেখেনি- তারা একবিংশ শতাব্দীর স্বৈরাচারী সরকার, ফ্যাসিবাদী সরকারকে দেখেছে। তারা দেখেছে এই সরকারের আমলে ছাত্রদের উপর অন্যায়-অত্যাচার। ছাত্রীদেরকে ধর্ষণ করে মেরে ফেলা, তারা দেখেছে ‘কোটা সংস্কার’ আন্দোলনকর্মীদের উপর জুলুম- তারা আরো সাক্ষী হলো জগন্নাথ বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র আরিফুলের লাশের। তাদের সহপাঠীদেরকে মেরে রক্তাক্ত করার সাক্ষীও তারা। তাদের কাছে আন্দোলনের অনেক উপাদানই রয়েছে। এই বয়সেই তো পুরো পৃথিবীকে পরিবর্তন করা …

আরও পড়ুন

‘মুখোশ ও মুখশ্রী’ নামধারী বুদ্ধিজীবীদের ‘মেধা’ আর ‘মেদের’ মধ্যে তফাৎ নেই : গ্রন্থ পর্যালোচনা

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী লিখিত ‘মুখোশ ও মুখশ্রী’ বইটি শেষ করার মধ্যদিয়ে এটুকু আরও পরিষ্কার হলো যে, জানার কোনো শেষ, শেখার কোনো শেষ নেই- জীবন মানেই জানা আর শেখা। আর সেই জানাকে কাজে লাগানোর জন্য, মানুষের জন্য কিছু করার জন্য- মানুষের মধ্যে নিজের জ্ঞানকে বিতরণ করার ক্ষুদ্র প্রয়াস এ লেখাটি। একইসাথে এ লেখার মতামত পেলে নিজেকে বিকশিত করতেও সহযোগিতা করবে বলে প্রত্যাশা করছি। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম বন্ধু বই। এখন পর্যন্ত এই সত্যটিকে …

আরও পড়ুন

অবাধ্য ধর্ষণ : স্বপ্নে পূর্ণার ছিন্নভিন্ন দেহটি ভেসে উঠে

ধর্ষণ আজকাল আর ভাবায় না- ইতিহাস-ঐতিহ্যের অংশ হয়ে গেছে। স্ত্রীলিঙ্গ নিয়ে জন্ম নিবে আর ‘ধর্ষণ’ হবে না তা আবার কেমন কথা! তার মধ্যে স্ত্রীলিঙ্গ নিয়ে জন্ম নেওয়া নারী ও শিশুটি যদি হয় দুর্বলচিত্তের- তার শ্রেণীগত অবস্থান যদি হয় শোষিতশ্রেণী। তাহলে তো আর কথাই থাকে না! আবার যদি হয় অন্য জাতিগোষ্ঠির! সবই সম্ভব তো এই রাষ্ট্রে। নতুন কিছু না তো, সবই পুরাতন কাহিনী। আমরা বোকারাই ভাবি, কষ্ট পাই, দুঃখ পাই- অগোচরে …

আরও পড়ুন

এই ধর্ষণকামী রাষ্ট্রব্যবস্থার পরিবর্তন চাই

চারদিকে নির্বাচনী হাওয়া। কয়লা চুরি, স্বর্ণ চুরি কোনোকিছুই নির্বাচনী হাওয়ায় প্রভাব ফেলতে পারছে না। আর তো সামান্য শিক্ষার্থীদের মৃত্যু, ১০ বছরের শিশু কন্যা ধর্ষণ! হাস্যকরই বটে! কেউ কেউ তো মিটিমিটি হাসছে- আরে মরছে তো ত্রিপুরা কন্যা তাতে এমন কি আর হয়েছে বলে স্বস্তির নিশ্বাসও ফেলছে! কেউ তো রীতিমতো গবেষণায় নেমেছে মেয়েটির পোশাক ঠিক ছিল কিনা! হুম! খারাপ শুনালেও এ কথাগুলোই ঠিক। আর শিক্ষার্থী দের মৃত্যু ও তো নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা। এত …

আরও পড়ুন

ভারত শাসন আইন ও বৌদ্ধদের নবজাগরন

১৯৩৫ সালে ভারত শাসন আইনটি ছিল সুবৃহৎ দলিল । ভারতের রাজনৈতিক সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে ১৯২৭ সালে গঠিত হয় সাইমন কমিশনের রির্পোট প্রকাশিত হয় ১৯৩০ সালে । কিন্তু ভারতীয়রা এই রির্পোট প্রত্যাখ্যান করেন । ভারতের রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার কথা চিন্তা করে এর সমাধানের নিমিত্তে সরকার ১৯৩০-১৯৩২ সালের মধ্যে তিনটি গোল টেবিল বৈঠক করেন । কিন্তু সেগুলা ব্যর্থ হয় । ইতিমধ্যে ব্রিটিশ প্রধান মন্ত্রী সাম্প্রায়িক রোয়েদাদ ঘোষনা করেন । বিভিন্ন দল ও সম্প্রাদায় …

আরও পড়ুন

জনগণের নতুন সংস্কৃতি প্রসঙ্গে

আমাদের দেশের শ্রমিক-কৃষকরা সংস্কৃতি কতটা বুঝবে? সাহিত্য শিল্প তাদের মনে কতটুকু দাগ কাটতে পারবে? এটা খুব কমন একটি প্রশ্ন! ভাসির্টি পড়ুয়া বেশিভাগ ছেলেমেয়েরা ভাবতেই পারেন না, উচ্চতর প্রাতিষ্ঠানিক ডিগ্রি না থাকা শ্রমিক ও কৃষকরা সংস্কৃতি বুঝে, শিল্প বুঝে। কিছুদিন আগে ঢাবি পড়ুয়া এক আপু বেশ গর্ব করেই বলছিলেন, ‘অশিক্ষিতরা যদি শিল্পী হয়, তবে পাঁচ বছর ধরে ঢাবিতে পড়ে আর কী লাভ, কি দরকার!’- বেশ দম্ভ নিয়ে কথাটা বলছিলেন তিনি। আমি …

আরও পড়ুন

গ্রাম পাঠাগার আন্দোলন, সমাজ পরিবর্তনের অন্যতম হাতিয়ার

গ্রাম আমাদের বর্ণনা করার মতো অসংখ্য স্মৃতির সাক্ষী। এজন ব্যক্তির স্মৃতির পাতায় গ্রাম শব্দটি না থাকলে স্মৃতিগুলো কেমন জানি ফেকাসে হয়ে যায়।অনেক দিনের স্বপ্ন ছিলো একটা পাঠাগার করবো এবং গ্রামের সাধারণ ছেলে-মেয়েরা পাঠাগারে নানান বই পড়বে এবং জ্ঞান অর্জন করবে, অবশেষে আমরা আমাদের স্বপ্ন বাস্তবায়িত করেছি। বিশেষ করে গ্রামে গ্রামে তেমন একটা পাঠাগার দেখা যায় না। সারা বাংলাদেশ ঘুরলে আপনি হাতে গোনা কয়েকটি গ্রামে পাঠাগার দেখতে পাবেন। কিন্তু প্রত্যেক গ্রামে …

আরও পড়ুন

কার্ল মার্ক্স : জীবন ও দর্শন

কার্ল হাইনরিশ মার্ক্স (জার্মান: Karl Heinrich Marx জার্মান উচ্চারণ: [kaːɐ̯l ˈhaɪnʀɪç ˈmaːɐ̯ks] ) (৫ই মে, ১৮১৮ – ১৪ই মার্চ, ১৮৮৩) একজন প্রভাবশালী জার্মান সমাজ বিজ্ঞানী ও মার্ক্সবাদের প্রবক্তা। জীবিত অবস্থায় সেভাবে পরিচিত না হলেও মৃত্যুর পর সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবীদের কাছে তিনি জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। বিংশ শতাব্দীতে সমগ্র মানব সভ্যতা মার্ক্সের তত্ত্ব দ্বারা প্রবলভাবে আলোড়িত হয়। সোভিয়েত ইউনিয়নে সমাজতন্ত্রের পতনের পর এ তত্ত্বের জনপ্রিয়তা কমে গেলেও তাত্ত্বিক দৃষ্টিকোণ থেকে মার্ক্সবাদ এখনও অত্যন্ত …

আরও পড়ুন

সুলতানা রাজিয়া দিল্লির সিংহাসনে বসা একমাত্র নারী শাসক

সুলতানা রাজিয়া, ইতিহাসে আলোড়ন সৃষ্টিকারী একটি নাম। ভারতবর্ষের ইতিহাসে দিল্লির সিংহাসনে বসা একমাত্র নারী। ৮০০ বছর আগে শাসন করেছেন গোটা ভারতবর্ষ। তিনি ছিলেন ভারতবর্ষের প্রথম নারী শাসক। এ ছাড়াও একজন যোগ্য সুলতান ও যুদ্ধক্ষেত্রে একজন দক্ষ সৈনিক হিসেবে ছিলো তার সুখ্যাতি। তীক্ষ বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে তিনি রাজকার্য পরিচালনা করেছিলেন।সুলতানা রাজিয়া জন্মগ্রহণ করেছিলেন ১২০৫ সালে। দৃপ্ত কঠিন ক্ষণজন্মা এই নারীর জীবন প্রদীপ নিভে গিয়েছিল খুব অল্পদিনেই। সুলতানা রাজিয়ার বাবা শামস-উদ-দীন ইলতুৎমিশ ছিলেন …

আরও পড়ুন

শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ; একজন অগোচর নায়ক

তাজউদ্দীন আহমদ (২৩ জুলাই ১৯২৫ – ৩ নভেম্বর ১৯৭৫) বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম নেতা। তিনি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব সাফল্যের সাথে পালন করেন। একজন সৎ ও মেধাবী রাজনীতিবিদ হিসেবে তাঁর পরিচিতি ছিল। তাজউদ্দীন আহমদ মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন যা মুজিবনগর সরকার নামে অধিক পরিচিত। স্বাধীনতা পরবর্তীকালে তিনি বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী হিসাবে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৫ সালে …

আরও পড়ুন
কামসূত্র

বিখ্যাত বই কামসূত্র ও যৌনবিজ্ঞান

কামসূত্র (সংস্কৃত: कामसूत्र বা কামসূত্রম এই শব্দ সম্পর্কে pronunciation, Kāmasūtra প্রাচীন ভারতীয় পণ্ডিত মল্লনাগ বাৎস্যায়ন রচিত সংস্কৃত সাহিত্যের একটি প্রামাণ্য মানব যৌনাচার সংক্রান্ত গ্রন্থ। গ্রন্থের একটি অংশের উপজীব্য বিষয় হল যৌনতা সংক্রান্ত ব্যবহারিক উপদেশ। গ্রন্থটি মূলত গদ্যে লিখিত; তবে অনুষ্টুপ ছন্দে রচিত অনেক পদ্যাংশ এতে সন্নিবেশিত হয়েছে। কাম শব্দের অর্থ ইন্দ্রিয়সুখ বা যৌন আনন্দ; অপরদিকে সূত্র শব্দের আক্ষরিক অর্থ সুতো বা যা একাধিক বস্তুকে সূত্রবদ্ধ রাখে। কামসূত্র শব্দটির অর্থ তাই …

আরও পড়ুন

কমিউনিস্টরা বিভ্রান্ত, উত্তরণের উপায়

রাষ্ট্র গঠনের উপাদান হল, সার্বভৌমত্ব, জনগণ, ভূমি ও প্রশাসন। চারটি উপাদান থাকলে আমরা তাকে রাষ্ট্র বলতে পারি। কমরেড লক্ষ্য করুন, সামন্তযুগে বুর্জোয়াদের রাষ্ট্র ছিল না। তারা রাজার অধীনে সামন্তসমাজে বসবাস করত। তাদের কর্তৃত্ব বলতে কিছু ছিল না। রাজা-জমিদারদের অত্যাচার শোষণ থেকে মুক্তির জন্য তারা আন্দোলন সংগ্রাম করে, শ্রেণিসংগ্রাম করে এবং রাজতন্ত্র ও ধর্মতন্ত্র উচ্ছেদ করে ইউরোপীয় ও মার্কিনীয় বুর্জোয়ারা তাদের ধনীর জাতীয়তার ভিত্তিতে রাষ্ট্র প্রস্তুত করল। তাদের ব্যবসা-বাণিজ্য প্রসার, অধিক …

আরও পড়ুন

কার্ল মার্কস প্রসঙ্গ: নৈতিকতা ও মানবিকতা

মার্কসবাদী বিরোধী শিবির প্রথমই যে আঘাতটা করে তা হচ্ছে মার্ক্সবাদে নৈতিকতার কোন স্থান নেই। মার্কস-এঙ্গেলস কে শয়তান হিসেবে বর্ণনা করা হয়ে থাকে। তাদের মধ্যে একজন টাকার উড উন্নতম। হ্যা, আমাদের স্বীকার করতে আপত্তি নেই, মার্কস-এঙ্গেলস সনাতনী নীতিবিদ ছিলেন না, উনারা অপরিবর্তনীয় ধ্রুব নীতিসর্বস্ববাদী কায়দায় যে নৈতিকতা তৈরি হয় তাকে প্রত্যাখ্যান করেন। মার্কসের পূর্বের দার্শনিকদের বিশ্লেষণ করলে আমরা দেখব কেউ কেউ ধর্মের প্রত্যাদেশ কে মেনে নেয় আবার কেউ কেউ নৈতিকতার মানদণ্ডের …

আরও পড়ুন

বাংলার প্রথম বিজ্ঞানমনস্ক লেখক অক্ষয়কুমার দত্ত

অনেকদিন ধরেই ভাবছি অক্ষয়কুমার দত্তকে নিয়ে কিছু একটা লেখা যায় কিনা। খোঁজে খোঁজে অক্ষয়কুমারকে আরো কাছ থেকে চেনার চেষ্টা চালাচ্ছি। বাংলার বিজ্ঞান চিন্তায় যে মানুষটির নাম আজীবন রয়ে যাবে তিনিই অক্ষয়কুমার। নিচে যা লিখেছি তা নিছক আমার পড়া কয়েকটি বইয়ের হুবুহু লাইন। অক্ষয়কুমার এমন একজন মানুষ যাকে কোন বাঙালি লেখকের সাথে তুলনা করা মানানসই নয়। প্রথম বিজ্ঞানমনষ্ক মানে বুঝতেই পরেন তিনি কতোটা স্বশিক্ষিত মানুষ ছিলেন। নিচে অক্ষয়কুমারের শিক্ষাজীবন, কর্মজীবন, ভাবধারা …

আরও পড়ুন
first world cup

ফুটবল ও বিশ্বকাপ ফুটবলের ইতিহাস

ফুটবলের ইতিহাস বিশ্বের প্রথম আন্তর্জাতিক ফুটবল খেলা হয়েছিল ১৮৭২ সালে স্কটল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের মধ্যে। প্রথম আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা ছিল ১৮৮৪ সালে শুরু হওয়া ব্রিটিশ হোম চ্যাম্পিয়নশিপ। এ সময়ে গ্রেট ব্রিটেন ও আয়ারল্যান্ডের বাইরে ফুটবল খেলা বলতে গেলে অনুষ্ঠিতই হত না। সেই শতাব্দীর শেষের দিকে বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তে ফুটবলের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেতে থাকে এবং এটিকে ১৯০০, ১৯০৪ ও ১৯০৬ সালের অলিম্পিকে প্রদর্শনী খেলা হিসেবে রাখা হয় তবে এর জন্য কোন পুরস্কার বরাদ্দ …

আরও পড়ুন
error: Content is protected !!