মোর্শেদ হালিম

রাজনীতি নয় আমি কেন ছাত্র আন্দোলনের কর্মী

  রাজনৈতিক ক্ষমতা হল একই দলভুক্ত ব্যক্তিদের দ্বারা অন্যব্যক্তিদের পরিচালনা করাকে বুঝায়। আর রাজনীতি হল এই ক্ষমতাকে ব্যবস্থাপনার একটা পদ্ধতি মাত্র। যা রাষ্ট্র পরিচালনার কাজে, সংগঠন পরিচালনার কাজে, দল পরিচালনার কাজে, পরিবার পরিচালনার কাজে কিংবা কখনও কখনও ব্যক্তি যখন নিজেই প্রতিষ্ঠান তখন অন্যব্যক্তিকে পরিচালনা করার কাজে ব্যবহার করা হয়। তাহলে বলুন, একজন শিক্ষার্থীর কেন রাজনীতি করতে হবে? কেন তাকে রাজনৈতিক ক্ষমতা অর্জন করতে হবে? যে …

বিস্তারিত পড়ুন

ধর্ম, ব্যক্তি, রাজনীতি ও ধর্মনিরপেক্ষ ভাবনা

আলোচনার শুরুতেই বলে নেওয়া প্রয়োজন আমি কেন ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাস করি। এই বিষয়টা বুঝতে আমাকে প্রচুর সময় অতিক্রম করতে হয়েছে। আমরা যদি একটু সচেতনভাবে বুঝতে চেষ্টা করি তাহলে দেখব, আমরা ব্যক্তিকে কখনই জানতে পারি না।  আমরা যা জানি বলে প্রচার করি তা মূলত, ঘটনা সম্পর্কে সাময়িক ধারণা। আসুন আরো ভিতরে ঢুকে বুঝতে চেষ্টা করি। ধরেন, আব্দুল রহিম ও দীপক শীল দুই বন্ধু। এরা পরস্পর দাঁড়িয়ে কথা …

বিস্তারিত পড়ুন

আবরার হত্যা: নতুন কিছু নয়

ধর্মনিরপেক্ষতা কোন আদর্শ নয়। প্রত্যেক ব্যক্তির চিন্তা যেন অন্যের দ্বারা বাঁধাপ্রাপ্ত না হয় তা নিশ্চিত করবে। ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রের নিজস্ব কোন নির্দিষ্ট মতাদর্শ নেই। তাহলে কোন রাষ্ট্র যদি বিশেষ চিন্তাকে গুরুত্ব দেয়, অধিকাংশ ব্যক্তির একই চিন্তাকে সিদ্ধান্ত আকারে নেয়, তা ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হতে পারে না। সংখ্যাধিক্য গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সঙ্গে ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রের এখানেই চরম বিরোধ খুঁজে পাওয়া যায়। আমার দেখি, প্রাচীন দার্শনিক প্লেটোর আদর্শ রাষ্ট্রচিন্তা গ্রহণ না …

বিস্তারিত পড়ুন

তোমাকে বলছি…..কেন ফ্যাসিবাদ দূর হয় না

কুসংস্কারচ্ছন্ন, ধর্মান্ধ, ভক্তিবাদী কর্মী বাহিনী নিয়ে ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করা যায় না। ইতিহাস কি বলে, ইউরোপী বুর্জোয়ারা যখন গির্জার শাসন থেকে জনগণকে মুক্ত করল তখন রাজার সঙ্গে আপোস করতে হয়। স্বৈরাতন্ত্রকে সমর্থন দিতে হয়। কারণ পুরোহিতদের সঙ্গে লড়াই করার মতো সক্ষমতা বুর্জোয়াদের ছিল না। সেকালে পুরোহিতরা জনগণকে ব্যক্তিস্বাধীনতা দেয়নি। ঈশ্বরের কাছে মাথা বন্ধক রাখতে হত। কেননা ধর্মও একপ্রকার সমাজবাদী আন্দোলন। জোটবদ্ধভাবে ঈশ্বরের বিধি নিষেধ মান্য …

বিস্তারিত পড়ুন

সেপ্টেম্বর শুধু উৎসব নয়: বদলা নেয়া হবে

মহান ভাষা আন্দোলনের পটভূমিতে ১৯৫২ সালের ২৬ এপ্রিল বর্তমান বংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের পথচলা। এই প্রতিষ্ঠানের আত্মপ্রকাশের মধ্য দিয়ে এ দেশের ছাত্র আন্দোলনে সূচিত হয় দেশপ্রেমিক ও বিপ্লবী ধারার। জন্মলগ্ন থেকেই ছাত্র ইউনিয়ন শিক্ষার অধিকার অর্জন, প্রকৃত গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল শোষণ ও নিপীড়নের অবসান, সাম্প্রদায়িকতা নির্মূল, সাম্রাজ্যবাদী, আধিপত্যবাদী ষড়যন্ত্র ও নয়া ঔপনিবেশক শোষণের হাত থেকে মুক্তি এবং দেশে একটি সুখী-সুন্দর সমাজ গঠনের লক্ষ্যে নিরবিচ্ছিন্ন …

বিস্তারিত পড়ুন

কমিউনিস্টরা বিভ্রান্ত, উত্তরণের উপায়

রাষ্ট্র গঠনের উপাদান হল, সার্বভৌমত্ব, জনগণ, ভূমি ও প্রশাসন। চারটি উপাদান থাকলে আমরা তাকে রাষ্ট্র বলতে পারি। কমরেড লক্ষ্য করুন, সামন্তযুগে বুর্জোয়াদের রাষ্ট্র ছিল না। তারা রাজার অধীনে সামন্তসমাজে বসবাস করত। তাদের কর্তৃত্ব বলতে কিছু ছিল না। রাজা-জমিদারদের অত্যাচার শোষণ থেকে মুক্তির জন্য তারা আন্দোলন সংগ্রাম করে, শ্রেণিসংগ্রাম করে এবং রাজতন্ত্র ও ধর্মতন্ত্র উচ্ছেদ করে ইউরোপীয় ও মার্কিনীয় বুর্জোয়ারা তাদের ধনীর জাতীয়তার ভিত্তিতে রাষ্ট্র প্রস্তুত …

বিস্তারিত পড়ুন

কার্ল মার্কস প্রসঙ্গ: নৈতিকতা ও মানবিকতা

মার্কসবাদী বিরোধী শিবির প্রথমই যে আঘাতটা করে তা হচ্ছে মার্ক্সবাদে নৈতিকতার কোন স্থান নেই। মার্কস-এঙ্গেলস কে শয়তান হিসেবে বর্ণনা করা হয়ে থাকে। তাদের মধ্যে একজন টাকার উড উন্নতম। হ্যা, আমাদের স্বীকার করতে আপত্তি নেই, মার্কস-এঙ্গেলস সনাতনী নীতিবিদ ছিলেন না, উনারা অপরিবর্তনীয় ধ্রুব নীতিসর্বস্ববাদী কায়দায় যে নৈতিকতা তৈরি হয় তাকে প্রত্যাখ্যান করেন। মার্কসের পূর্বের দার্শনিকদের বিশ্লেষণ করলে আমরা দেখব কেউ কেউ ধর্মের প্রত্যাদেশ কে মেনে নেয় …

বিস্তারিত পড়ুন

মার্ক্সীয় সাম্যবাদ অনিবার্য

ইউরোপে ১৬৮৮ সালে ইংলিশ বিপ্লব ও ১৭৮৯ সালে ফরাসি বিপ্লবের পথধরে পুঁজিবাদ যাত্রা করে। দীর্ঘ কালপর্যায়ে ইউরোপীরা দুনিয়ার প্রায় অঞ্চল তাদের উপনিবেশিক শাসনে পরিণত করেছিল। কার্ল মার্কস কমিউনিস্ট ইশতেহার রচনা করেন ১৮৪৮ সালে। এরপূর্বেই স্বাধীনতা আন্দোলন, ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন, ইংরেজ হঠাও, স্বাধীনতা নয় মৃত্যু এমন স্লোগান দুনিয়া জোরে উচ্চারিত হতে থাকে। যেমন, আমেরিকা স্বাধীন হয় ১৭৭৬ সালে, রুশ বিপ্লব হয় ১৯১৭ সালে, দেশভাগ হয় ১৯৪৭ সালে …

বিস্তারিত পড়ুন

আমি কেন অবিশ্বাসী

দর্শনের অগ্রযাত্রা থেমে নেই। সময় যতই অতিক্রম করছে ঠিক ততই আমরা নতুন নতুন জ্ঞানের সন্ধান পাচ্ছি। তাই চূড়ান্ত জ্ঞান এবং তাতে স্থিরতা বলে কিছু নেই. বিজ্ঞানও আমাদের ধ্রুব সত্য দিতে পারে না। আমরা বিজ্ঞানসম্মত ভাবে সাময়িক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারি। আপাতভাবে স্বাভাবিক জীবন যাপনের জন্য অধিকতর যৌক্তিক ও প্রমাণিক সিদ্ধান্ত নিতে পারি। এই সিদ্ধান্ত ততক্ষণই অপরিবর্তিত থাকে যতক্ষণ গ্রহীত সিদ্ধান্তের পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি অক্ষুণ্ন ভাবে বাস্তবে …

বিস্তারিত পড়ুন

বাঙালী ছাত্র ইউনিয়ন

১৯২৪ সালের শেষের দিকে বর্মার গোপন পার্টির ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় “সারা বর্মা বাঙালী ছাত্র ইউনিয়ন প্রতিষ্ঠা করা হয়। নামে বাঙালী ছাত্র হলেও অবাঙালী ছাত্ররাও এর সদস্য হতে পারত।অনেক বাধা-বিপত্তি অতিক্রম করে এই ছাত্র ইউনিয়ন তার শক্তি সঞ্চয় করতে পারে এবং বর্মার বাঙালী ছাত্র-ছাত্রীদের অতি প্রিয় সংগঠনে পরিণত হয়। সেই সময় বিপ্লবী ছাত্র কর্মীরা এই সংগঠনের সদস্য ছিল। এই সংগঠন বহু বিপ্লবী কর্মীর জন্ম দিয়েছে। রেঙুন বিশ্ববিদ্যালয়ের …

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!